দক্ষতা-প্রশিক্ষণের অভাবে ঝরে পড়ছে বাংলাদেশের ফ্রিল্যান্সাররা

98

মাইজব ডেস্ক: ফ্রিল্যান্সিং বা মুক্ত পেশা এখন বেকার ও তরুণ শিক্ষার্থীদের মধ্যে বেশ জনপ্রিয় নাম। সম্প্রতি ভাষাগত দক্ষতা ও যুগোপযোগী প্রশিক্ষণের অভাবে ঝরে পড়ছে এ পেশায় আসা ফ্রিল্যান্সারদের একটি বড় অংশ। অনলাইন মার্কেটগুলোতে দিন দিন সুনামও নষ্ট হচ্ছে বাংলাদেশের। বিশেষজ্ঞদের মতে, সম্ভাবনাময়ী এই খাতের জন্য প্রয়োজন প্রাতিষ্ঠানিক জ্ঞান।

চাকরির জন্য যখন দেশব্যাপী বেকার যুবকদের মধ্যে ব্যাপক হতাশা ও দফায় দফায় রাজপথে আন্দোলন তখন তাদের জন্য নবযুগের সূচনা করছে ফ্রিল্যান্সিং বা মুক্ত পেশা। যা অনলাইন বা অফলাইনের মাধ্যমে তথ্য-প্রযুক্তি ভিত্তিক কাজের মাধ্যম।

আইসিটি মন্ত্রণালয়ের তথ্য বলছে বাংলাদেশে বর্তমানে সাড়ে ৬ লাখ ফ্রিল্যান্সার রয়েছেন। এর মধ্যে ৫ লাখ নিয়মিত কাজ করছেন। প্রতিবছর এই খাত থেকে ১শ’ মিলিয়ন মার্কিন ডলার রেমিটেন্স আসছে। কিন্তু বাস্তবতা বলছে ভিন্ন কথা। ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটগুলো ঘেটে দেখা যায় এই পেশায় আসা অনেকে দ্রুত ঝরে পড়ছেন। অনেকে কাজ না পেয়ে হতাশায় ভুগছেন।

সংশ্লিষ্টদের মতে, ফ্রিল্যান্সিংয়ে গ্রাফিক্স ডিজাইন, এনিমেশন, ওয়েব ডেভেলপসহ অনেক ধরনের কাজ রয়েছে যার জন্য অভিজ্ঞতার পাশাপাশি প্রয়োজন ভাষাগত দক্ষতা।

বিশেষজ্ঞদের মতে এ পেশায় সফল হতে প্রয়োজন প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা যা বাংলাদেশে নেই। বলেন, ফ্রিল্যান্সিংয়ে আগ্রহীদের জন্য প্রয়োজন যুগোপযোগী শিক্ষা ব্যবস্থা।

নীতিনির্ধারকরা বলছেন, সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠান ভিন্নভাবে ফ্রিল্যান্সারদের জন্য বেশ কিছু উদ্যোগ নিলেও তা প্রয়োজনের তুলনায় সীমিত।

সম্প্রতি তথ্য প্রযুক্তির উন্নয়নে সরকার বেশী গুরুত্ব দিলেও সম্বাবনাময়ী এ খাতের জন্য প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা না থাকায় এবিষয়ে নজর দিতে সরকারের প্রতি আহ্বান সংশ্লিষ্টদের।